ফেসবুকে যারা লাইক পাননা লাইক দেন, লাইক দেন বলে চিত্কার করেন তারা দেখুন।

ফেসবুকে যারা লাইক পাননা লাইক দেন, লাইক দেন বলে চিত্‍কার করেন তারা দেখুন,,,
0

ইদানিং ফেসবুকে ঢুকলেই দেখা যায় লাইক দেও না কেনো, লাইক দাও তারাতারি। এটা সেটা আরো কতো কি।
.
যারা লাইকের জন্য চেঁচামেচি করেন তাদেরকে আজকে কিছু টিপস দিবো।
.
ভাই আপনি যে লাইক লাইক করেন আপনার ফেরেন্ড কতো?
.
১০০।
.
আপনার অনলাইনে কতো?
.
১০-২০ টা।
.
লাইক পান কতো?
.
১৫-১৬ টা।
.
বেশি লাইক পাওয়ার জন্য আপনাকে কি করতে হবে?
.
একটিভ লাইকার ফেরেন্ড বাড়াতে হবে।
.
ধরেন আপনার আইডিতে ফেরেন্ড ১ হাজার তার মধ্যে কি সবাই ফেসবুকে ঢুকে?
.
না ১ হাজার ফেরেন্ডের মধ্যে ৫০-৬০ জন ফেসবুকে ঢুকে।
.
তো বাকি ৯৫০ জনকে বন্ধু বানিয়ে লাভটা কি হলো।
.
***=>যাইহোক এবার আসুন দেখে নেই কাকে বন্ধু বানালে লাইক কমেন্ট বেশি পাবেন।
.
১.যারা ফেসবুকে কমেন্ট করে তাদেরকে বন্ধু বানাতে পারেন।
.
২.কাউকে বন্ধু বানানোর আগে দেখে নিবেন আপনার সাথে তার Mutual Friend কতো?
.
যদি Mutual Friend বেশি হয় তাহলে ফেরেন্ড রিকুশ দিন।
.
৩.কাউকে ফেরেন্ড রিকুশ দেওয়ার আগে তার প্রোফাইলটা চেক করে নিতে পারেন।
.
৪.কাউকে ফেরেন্ড রিকুশ দেওয়ার আগে তার আইডিতে ঢুকে টাইমলাইনটা চেক করে দেখুন তার পোস্ট গুলো দেখে ধারনা নিন সে একটিভ লাইকার কিনা?
.
৫.আবার কাউকে বন্ধু বানানোর আগে দেখুন সে কয়দিন আগে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলো।
.
যদি দেখেন সে ১০ দিন হলো একটা পোস্ট ও দেয়নি তাহলে তাকে ফেরেন্ড রিকুশ দেওয়ার দরকার নাই।
.
কারন সে ১০ দিনে ফেসবুকেই ঢুকে নাই। (সবার ক্ষেত্রে না)।
.

৬. কিছু একটিভ লাইকার ফেরেন্ড পেতে লাইলে এই পোস্টটায় যারা লাইক কমেন্ট করবে তাদেরকে এড করে নিতে পারেন।
.
কারন তারা একটিভ লাইকার বলেই লাইক কমেন্ট করতেছে।
.
তাই এই পোস্টে যারা লাইক কমেন্ট করতেছে তাদেরকে ফেরেন্ড রিকুশ দিন।
.
***=>আসুন এবার দেখে নেই কাদেরকে বন্ধু বানাবেন না।
.
১.লাইক কমেন্ট পেতে চাইলে মেয়েদের নামের আইডি গুলোকে বন্ধু বানাবেন না।
.
কারন মেয়েরা কখনোই লাইক কমেন্ট করেনা।(কয়েকজন ছাড়া, সবাই না)।
.
২.ফেসবুকে Find Friend মানে আপনার আইডি অনেক সময় কিছু আইডি আসে চলে আসে যাদেরকে ফেসবুক Add Friend করতে বলে।
.
তাদেরকে বন্ধু বানানোই ভালো। কারন ঐখানে Unactive দের সংখ্যা বেশি থাকে।
.

Leave a Reply